আ.লীগ ও বিএনপিতে গ’ণতন্ত্র নেই বললেন দিলারা চৌ’ধুরী।

আ.লীগ ও বিএনপিতে গ’ণতন্ত্র নেই বললেন দিলারা চৌ’ধুরী।

বিপ্লব সাহাঃ জামায়াত ইসলামীর রা’জনীতিকে যুগোপযোগী এবং আধুনিকায়নের ডা’ক দিয়ে জন-আ’কাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ নামে নতুন রা’জনৈতিক উদ্যোগের দুই দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় কর্মশালা গতকাল শুক্রবার শুরু হয়েছে কক্সবাজারে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশে নারী নেতৃত্বের দরকার রয়েছে। এ জন্য দলে নারীদের সম্পৃক্ততা বাড়ানোর দরকার রয়েছে। আলোচকরা বলেছেন, মু’ক্তিযু’দ্ধ ও ধর্ম নিয়ে কোনোভাবেই রা’জনীতির নামে ব্যবসা করা চলবে না।

বিএনপি ও আ.লীগে গ’ণতন্ত্র নেই বলেও তাঁরা দাবি করেছেন। কক্সবাজারে সাগরপারের কলাতলী এলাকায় একটি হোটেলের স’ম্মেলনকক্ষে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. দিলারা চৌ’ধুরী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ফেনীর আলোচিত সাবেক জেলা প্রশাসক এবং সাবেক সচিব এ এফ এম সোলায়মান চৌ’ধুরী। অনুষ্ঠানে ড. দিলারা চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি ও আ.লীগ দেশে বং’শানুক্রমিক রা’জনীতি চালু করেছে। এই দলগুলোতে গণতন্ত্র নেই। দেশকে র’ক্ষা করতে হলে তরুণদেরকে এগিয়ে আসতে হবে।

যদিও তরুণদের চরিত্র এবং চিন্তা ধ্বং’স করতে রা’জনৈতিক দলগুলোই দায়ী। তিনি জন-আ’কাঙ্ক্ষাকে নিজেদের মধ্যে গঠনমূলক সমা’লোচনা চালু করার পরামর্শ দিয়েছেন। সেই স’ঙ্গে জন-আ’কাঙ্ক্ষায় নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। অনুষ্ঠানে জন-আ’কাঙ্ক্ষার প্রধান সমন্বয়ক মজিবুর রহমান মনজু বলেছেন, রা’জনৈতিক দল গঠনের কার্যক্রমে আমাদের অনেক উপহাস ও প্রতিকূলতা মো’কাবেলা করে এগোতে হচ্ছে।

পা’শাপা’শি দেশ-বিদেশের আমরা যথেষ্ট সাড়া পাচ্ছি। কক্সবাজারের কর্মশালাকে একটি মাইলফলক হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেছেন, এখান থেকেই আমাদের যথাযথভাবে সংগঠিত হওয়ার সূচনা হলো। আ’ন্তর্জাতিক অ’পরাধ ট্রাইব্যুনালে জামায়াত নেতাদের পক্ষে মা’মলা পরিচালনাকারী আইনজীবী তাজুল ইসলাম বলেছেন, নতুন বাংলাদেশ গড়তে হলে সাম্য সামাজিক সুবিচার ও মানবিক ম’র্যাদা নিশ্চিত করার রা’জনীতিকে মূলধারার রা’জনীতি হিসেবে গ্রহণ করতে হবে।

লালমনিরহাট-১ আসনের জামায়াত ও ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী আবু হেনা এরশাদ হোসেন সাজু রংপুর অ’ঞ্চলের এক দল সংগঠকসহ যোগ দেন এই কর্মশালায়। তিনি জামায়াত থেকে পদত্যা’গ করে জন-আ’কাঙ্ক্ষায় যুক্ত হওয়ার কারণ ব্যখ্যা করেন। তিনি বলেছেন, মুক্তিযু’দ্ধ ও ধর্মকে ব্যবসার পণ্য বানানো খুবই দুঃ’খজনক। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এনায়েত উল্লাহ পাটোয়ারী, রবীন্দ্র বিজয় বড়ুয়া, অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর চৌ’ধুরী, আনিসুর রহমান কচি, চট্টগ্রাম কলেজের সাবেক শিবির নেতা জাহাঙ্গীর কাসেম, সাংবাদিক শামসুল হক শারেক প্রমুখ, অ্যাডভোকেট গোলাম ফারুক খান কায়সার।

Leave a Comment